তথ্য প্রযুক্তিতে পারদর্শী ও তারুণ্যের কারণে হবিগঞ্জ-৪ এ চমক আনতে পারেন মারুফ সিদ্দিকী

Sharing is caring!

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি : পাহাড়, চা-বাগান অধ্যুষিত চুনারুঘাট-মাধবপুর উপজেলার সংসদীয় আসন হবিগঞ্জ-৪। আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে হবিগঞ্জ-৪ (চুনারুঘাট-মাধবপুর) আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় উপ-কমিটির সদস্য ও মুজিব আদর্শের পরীক্ষিত সৈনিকদের একমাত্র অনলাইন ভিত্তিক সংগঠন বাংলাদেশ অনলাইন আওয়ামী টিম (বোট) এর প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এড. দেওয়ান মারুফ সিদ্দিকী আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী হয়ে চুনারুঘাট-মাধবপুরের নেতাকর্মীদের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করে ব্যাপক প্রচার-প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন।

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের স্নেহভাজন ও কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক বাবু সুজিত রায় নন্দীর বিশ্বস্ত ও আস্থাভাজন হিসেবে প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করার লক্ষ্যে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দের সাথে প্রত্যেকটি কর্মসূচি ও মিছিল মিটিংয়ে অংশগ্রহণের মাধ্যমে ইতোমধ্যে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে সম্ভব হয়েছেন।

এদিকে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন- আগামী সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ আবারও সরকার গঠন করবে। আর এই সরকার হবে তারুণ্য নির্ভর ও তথ্য প্রযুক্তিতে পারদর্শী সদস্যদের নিয়ে। তথ্য প্রযুক্তিতে পারদর্শী ও তারুণদের মনোনয়নে অগ্রধিকার দেয়া হবে। যার ফলে হবিগঞ্জ-৪ (চুনারুঘাট-মাধবপুর) আসনে এড. দেওয়ান মারুফ সিদ্দিকীকেই এগিয়ে রাখছেন অনেকে।

ভোটাররা বলছেন- তথ্য প্রযুক্তিতে পারদর্শী এবং তরুণ হওয়ায় এড. মারুফ সিদ্দীকেই বেচেঁ নিতে পারেন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তাছাড়া, তৃণমূলকে সুসংগঠিত করে আওয়ামী লীগের হাতকে শক্তিশালী করতেও ব্যপক অবদান রেখেছেন এড. মারুফ সিদ্দিকী। ছাত্রজীবন থেকে তিনি আওয়ামী লীগের একজন নিবেদিত প্রাণ। দলের জন্য তার ত্যাগও রয়েছে অনেক।

অপরদিকে, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের অত্যন্ত ¯েœহভাজন হওয়ায় আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সকল কর্মসূচিতেই অংশগ্রহণ করেন তিনি। এর ধারাবাহিকতায় সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের দেশের যে কোন প্রান্তে বিভিন্ন ধরণের সভা সমাবেশে মারুফ সিদ্দিকীকে সাথে নিয়ে যান। প্রতিদিনই তিনি আওয়ামী লীগের বিভিন্ন কর্মকা-ে যোগদান করেন। যার ফলে আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতৃবৃন্দের মনে অনেকটা স্থান করে নিয়েছেন তিনি।

এছাড়াও, শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করার লক্ষ্যে এবং আওয়ামী লীগ সরকারের উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড জনসাধারণের মাঝে তুলে ধরে তিনি তার নির্বাচনী এলাকা চুনারুঘাট-মাধবপুর উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে গ্রামে ব্যাপক উঠান বৈঠকের কর্মসূচি করেছেন। নৌকার প্রচারনা চালিয়ে লিফলেট বিতরণ করে তিনি তার গণসংযোগ অব্যাহত রেখেছেন। দীর্ঘদিন মাঠ পর্যায়ে আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে সম্পৃক্ত থাকার কারণে এলাকায় তার ব্যাপক জনপ্রিয়তাও রয়েছে। সর্বস্তরের তৃণমূল নেতাকর্মীদের সাথে সৎ ব্যবহারের কারণে এড. মারুফ সিদ্দিকী সকলের নিকট প্রিয় ব্যক্তিত্ব। ত্রাণ বিতরণ কর্মসূচিসহ বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এবং কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক বাবু সুজিত রায় নন্দীর সাথে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ ঘোষিত সভা সমাবেশ ও উন্নয়নমূলক কর্মকান্ডসহ বিভিন্ন কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করে আসছেন তরুণ এই রাজনীতিবিদ।

এ ব্যাপারে এড. দেওয়ান মারুফ সিসদ্দিকী বলেন- ছাত্রজীবন থেকে আওয়ামী লীগের জন্য অনেক ত্যাগ শিকার করেছি। তাছাড়া আওয়ামী লীগের প্রত্যেকটি কর্মকা-ে আমি অংশগ্রহণ করি। তাই আশা করি নেত্রী আমাকে বিবেচনা করবেন। তাছাড়া নেত্রী এ বছর যে ধরণের প্রার্থী চাচ্ছেন, আমি মনে করি আমার এতে কোন কমতি নেই। ইনশাল্লাহ চুনারুঘাট-মাধবপুরবাসীর সেবা করার সুযোগ নেত্রী আমাকে দেবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *